Breaking News

প্রেমের টানে ভারতীয় তরুণী বাংলাদেশে, অতঃপর…

যশোরের চৌগাছা সীমন্ত থেকে ভরতীয় তরুণী প্রিয়া সরকার (২০) ও তার প্রেমিকসহ সাতজন বাংলাদেশীকে আটক করেছে বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনী-বিজিবি। পরে ওই তরুণীকে ভারতে পুশব্যাক করা হয়। অন্যদের থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে হিজলি ক্যাম্পের বিজিবি জোয়ানরা উপজেলার স্বরুপদহ ইউনিয়নের গদাধারপুর গ্রামের মৃত আজম আলীর ছেলে আখের আলীর বাড়ি থেকে তাদের আটক করেন।

প্রিয়া সরকার নামের ভারতীয় ওই তরুণী জানান, আত্মীয়তার সূত্রে সৌরভ সরকারের সাথে তার মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ কারণে বাংলাদেশে এসেছেন। তাকে ফেরত পাঠানো হলে আত্মহত্যা করবেন।

এ দিকে, আটকের পর ভারতীয় নাগরিক প্রিয়া সরকারকে প্রথমে স্থানীয় ইউপি সদস্য শিমুল হোসেনের জিম্মায় রাখা হয়। পরে বিজিবি-বিএসএফ পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে তাকে ভারতে তার স্বজনদের কাছে ফেরত দেয়া হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্বরুপদহ ইউপি সদস্য শিমুল হোসেন।

প্রিয়া সরকার ভারতের টেংরা গ্রামের ভরত সরকারের মেয়ে। তার একমাত্র ভাই ভারতীয় সেনা সদস্য।

আটক অন্যরা হলেন- প্রিয়া সরকরের প্রেমিক যশোরের শার্শা উপজেলার কানাই নগর গ্রামের শংকর সরকারের ছেলে সৌরভ সরকার (২৫), একই গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে আরিফ হোসেন (২২), ঝিকরগাছার কৃষ্ণচন্দ্রপুর গ্রামের হাসেম আলীর ছেলে সুজন হোসেন (২০), রফিকুল ইসলরামের ছেলে জালাল উদ্দীন (১৮), একই গ্রামের আবজাল হোসেনর ছেলে নোমান হোসেন (২৭), তাদের বহনকারী ইজিবাইকচালক একরামুল হোসেন (২০) ও চৌগাছা উপজেলার সীমান্ত গদাধারপুর গ্রামের মৃত আজম আলীর ছেলে আশ্রয় দাতাআখের আলী (৫৫)।

হিজলি বিজিবির দাবি আটককৃতরা অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশের চেষ্টা করছিল। আটকদের চৌগাছার থানার মাধ্যমে আদালতে পাঠানো হবে বলে জানান আন্দুলিয়া বিজিবি কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার নজরুল ইসলাম।

এদিকে শুক্রবার বিকেলে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে প্রিয়া সরকাকে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের হাতে তুলে দেয় বিজিবি। পরে তার স্বজনদের কাছে ভারতে ফেরত পাঠানো হয়। এ সময় বিজিবির পক্ষে আন্দুলিয়া বিজিবি ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার নজরুল ইসলাম ও বিএসএফর পক্ষে ১০৭ ডেল্টা বেটিলিয়ান ভারতের উত্তর বয়রা ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার কাজুর উপস্থিত ছিলেন।

প্রেমিক সৌরভ সরকারের চাচাতো ভাই অরবিন্দ সরকার বলেন, ভারতের টেংরা গ্রামে সৌরভের আত্মীয় রয়েছে। সেখানে যাতায়াতের মাধ্যমে প্রিয়া সরকারের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক হয়। এরপর ফোনে কথা চলে তাদের। হঠাৎ প্রেমিকা প্রিয়া বাংলাদেশে এসে সৌরভের কাছে ফোন দেন। বলেন, তাকে না নিয়ে গেলে ওই বাড়িতেই আত্মহত্যা করবেন। এ কারণেই হয়তো আমার ভাই এখানে এসেছিল।

তিনি বলেন, ভারতীয় মেয়েটিকে ভারতে ফেরত দেয়া হয়েছে। কিন্তু আমার ভাইদেরকে জেলখানায় যেতে হলো, এ কেমন বিচার!

এর আগে প্রিয়া সরকার বলেন, আমি আমার বাবার কাছে অনুমতি নিয়েই এসেছি। আমি বিএ দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। আমার বুঝ শক্তি হয়েছে। আমাকে ফেরত দিলে আমি আত্মহত্যা করব।

চৌগাছা থানার ডিউটি অফিসার এএসআই সুমন হোসেন বলেন, এ ঘটনায় চৌগাছা থানায় একটি মামলা হয়েছে। আটকদের শনিবার আদালতে পাঠানো হবে।

About admin

Check Also

একমাত্র ছেলে আব্রামের ধর্ম নিয়ে যা বললেন অপু বিশ্বাস

অপু বিশ্বাস শাকিব খান-অপু বিশ্বাসের সন্তান আব্রাম খান জয়। শাকিবের সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়ে যাওয়ার পর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *