Breaking News

আইপিএলের যেসব বিষয় কখনোই বদলায়নি

করোনার থাবায় চলতি আসরের মাঝ পথে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হয়ে গিয়েছে আইপিএল। কিন্তু ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটের সবচেয়ে আকর্ষণীয় টুর্নামেন্টটিকে নিয়ে আলোচনা তো এতো সহজে শেষ হবার নয়। কোটি টাকার লোকসান পোষাতে এই মুহূর্তে একদিকে বিসিসিআই যেমন মরিয়া হয়ে উঠেছে, ঠিক তার উলটোদিকে পুরো বিশ্বের অনেক বুদ্ধিজীবীরা মানবসভ্যতার এই চরম দুঃসময়ে নিছক খেলাধুলার পিছনে এতোগুলো টাকা ঢালার বিরোধিতা করছেন। তবে ভারতের যা পরিস্থিতি তাতে আপাতত মনে হচ্ছে না যে টুর্নামেন্টটি এতো তাড়াতাড়ি শুরু হবে। এমন সময়ে আইপিএলকে যদি কেউ খুব মিস করে থাকেন, তবে তাদের জন্যই থাকলো এই প্রতিবেদনটি।

২০০৩ সালে ক্রিকেটের নতুন সংস্করণ ‘টি-টোয়েন্টি’-র উদ্ভাবনের পর থেকেই ফর্ম্যাটটি ক্রিকেটপ্রেমিদের কাছে দ্রুত জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করে। বিশেষ করে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সময় স্বল্পতা সেটিকে বিশ্ববাসীর সামনে ‘সান্ধ্যকালীন বিনোদন’ হিসেবে পরিচিত করে তোলে। এর ফলে এতোদিন যেসব জাতি ক্রিকেটকে সময়ের অপচয়কারী বস্তু হিসেবে আখ্যা দিয়ে আসছিল, তাদেরও মন গলতে থাকে। এক্ষেত্রে আবার সোনায় সোহাগা রূপে আবির্ভূত হয় ২০০৭ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। যেখানে শিরোপা জয়ের পর ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) ফুটবল জগতের ন্যায় একটি ক্লাবভিত্তিক ক্রিকেট টুর্নামেন্ট আয়োজনের উদ্যোগ নেয়। যার চূড়ান্ত ফসল আজকের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ তথা আইপিএল।

২০০৮ থেকে ২০২১ – দীর্ঘ ১৩ বছরের এই সফরে আইপিএলের অনেক জিনিসই বদলে গেলেও কিছু কিছু ব্যাপারে শুরু থেকে আজ পর্যন্ত ঠিক একই রকম রয়ে গেছে টুর্নামেন্টটি। সেরকম চারটি রেকর্ড নিচে দেখানো হলো।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখার আগেই আইপিএল জয়

আমরা সবাই জানি যে, যেহেতু প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই আইপিএলে বিশ্ব ক্রিকেটের বড় বড় সব তারকারা খেলে আসছেন,তাই এখানে ভালো কিছু করে দেখাতে হলে যথেষ্ট কাঠ-খড় পোড়াতে হয়। আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অনভিষিক্ত ক্রিকেটার হলে তো কথাই নেই। কিন্তু আইপিএলের উদ্বোধনী আসরে এই ধারণাটিকে ভুল প্রমাণ করেছিলেন অস্ট্রেলিয়ান তরুণ ব্যাটসম্যান শন মার্শ। শচীন টেন্ডুলকার, ম্যাথু হেইডেন, রিকি পন্টিং, সনাৎ জয়াসুরিয়ার মতো কিংবদন্তিদের পিছনে ফেলে ৬১৬ রান স্কোর করে ঐ আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহ করেছিলেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে একটি বলও না খেলা শন মার্শ। এই ঘটনার এক যুগেরও বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও তার সেই রেকর্ডে আজ অবধি কেউ ভাগ বসাতে পারেনি।

কলকাতার ইতিহাসের একমাত্র সেঞ্চুরিয়ান

বলিউডের হার্টথ্রুব শাহরুখ খানের দল কলকাতা নাইট রাইডার্স ইতোমধ্যে দুইবার শিরোপা জয় করে নিলেও একটি ব্যাপারে তাদের আক্ষেপ দীর্ঘদিনের। কারণ আইপিএল সফরের এতোগুলো বছর পার করে এলেও দলটির ইতিহাসে এক ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম ছাড়া কারো ঝুলিতে বেগুনি জার্সি গায়ে সেঞ্চুরির প্রাপ্তি নেই। অথচ মজার ব্যাপার হচ্ছে, টুর্নামেন্টটির ইতিহাসের প্রথম ম্যাচেই মাত্র ৭৩ বলে ১৫৮ রানের সেই অনবদ্য ইনিংসটি খেলেছিলেন ম্যাককুলাম। কালের আবর্তনে সেই ম্যাককুলামই আজ খেলা ছেড়ে দিয়ে ক্রিকেট গুরুতে (কোচ!) পরিণত হলেও কলকাতা তাদের সেই অভাব পূরণ করতে পারেনি।

চেন্নাইয়ের পালের গোদা

আইপিএলের শুরু থেকে আজ পর্যন্ত চেন্নাই সুপার কিংসের দলপতির দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন ভারতকে বৈশ্বিক তিন টুর্নামেন্টেই শিরোপা এনে দেওয়া কাপ্তান মাহেন্দ্র সিং ধোনি। মাঝখানে স্পট ফিক্সিংয়ের দায়ে ২০১৬ ও ২০১৭ সালে চেন্নাই আইপিএল থেকে বহিষ্কার হলেও তারপরের মৌসুম থেকে ফের ধোনির কাঁধেই দলের দায়িত্ব অর্পণ করে তার সিএসকে কর্তৃপক্ষ। আইপিএল ইতিহাসে অন্য কোনো খেলোয়াড় তার গোটা ক্যারিয়ার জুড়ে এভাবে একই দলের অধিনায়কত্ব করার সুযোগ পাননি।

কোহলির সঙ্গে আরসিবির ‘বিরাট’ সম্পর্ক

ধোনির মতো কোহলিও গত ১৩ বছর যাবত আইপিএলে একই দলের হয়ে খেলেছেন। তবে পার্থক্যটা হচ্ছে, ২০০৮ সালে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু যখন বিরাট কোহলিকে কিনে নেয়, তখন তিনি আজকের মতো কিংবদন্তিতুল্য কোনো চরিত্র ছিলেন না। তবে দলটি শুরু থেকেই তাকে সমর্থন জুগিয়ে আসছিল আর যার ফলস্বরূপ সেই কোহলিই আজ জাতীয় দলের পাশাপাশি ক্লাবটিকে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন।

About admin

Check Also

একমাত্র ছেলে আব্রামের ধর্ম নিয়ে যা বললেন অপু বিশ্বাস

অপু বিশ্বাস শাকিব খান-অপু বিশ্বাসের সন্তান আব্রাম খান জয়। শাকিবের সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়ে যাওয়ার পর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *